1. admin@amarsongbad24.com : admin :
  2. zihadononto15@gmail.com : Zihad Hokkani : Zihad Hokkani
গাইবান্ধার বিভিন্ন চর এলাকায় ভূট্টার বাম্পার ফলন - AMAR SONGBAD 24
শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ০২:০৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
এক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহমুদ মিয়া অপর বিদ্যালয়ে সভাপতি, নানা অনিয়মের অভিযোগ! গাইবান্ধায় প্রকৌশলী কল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে বিশুদ্ধ ঠান্ডা খাবার স্যালাইন পানি বিতরণ জুয়া বসানোর অভিযোগে সাদুল্লাপুরে ইউপি মেম্বার আল-আমিনের বিরুদ্ধে মামলা! (ভিডিও ভাইরাল) সুন্দরগঞ্জের চরাঞ্চলে কর্মোক্ষম মানুষের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী  বিতরণ ভিজিএফের চাল ওজনে কম দেয়ার অভিযোগ সাংবাদিককে লাঞ্চিত করলেন মেয়র সুন্দরগঞ্জ উপজেলা প্রেসক্লাবে আলোচনা দোয়া ও ইফতার  সুন্দরগঞ্জে বারো জুয়াড়িসহ গ্রেফতার-১৩ সুন্দরগঞ্জে জমি নিয়ে সংঘর্ষে নিহত এক, গ্রেফতার দুই সুন্দরগঞ্জে স্কুল মাঠে ঝড়ে ভেঙে পড়া গাছ খেলাধুলা বন্ধ সুন্দরগঞ্জে রাস্তায় বাঁশের বেড়া ২৩ দিন ধরে অবরুদ্ধ ৪ পরিবার

গাইবান্ধার বিভিন্ন চর এলাকায় ভূট্টার বাম্পার ফলন

মোঃরিফাতুন্নবী রিফাত,গাইবান্ধা
  • প্রকাশের সময়: রবিবার, ৮ জানুয়ারি, ২০২৩
  • ৫১



উত্তরের জনপদ গাইবান্ধাকে চিনেন মূলত বন্যার সময় এলেই,কারণ বন্যার সময় জেলার কয়েকটি উপজেলায় পানিতে হাবু-ডুবু খায়। আর বন্যার পানি নেমে গেলে চরের বুকে নানা রকম ফসল ফলান বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকেরা।

তাই এবছর বন্যার পানি নেমে যাওয়া পরেই চাষ করেছেন ভুট্টাসহ নানা রকমের সবজি।
বিগত বন্যায় গাইবান্ধার চরাঞ্চলের ঘড়-বাড়ি ক্ষয়-ক্ষতি হলে পাহাড়ি ঢলে আর বৃষ্টির পানিতে ভেসে আসা পলিমাটি জমির উৎপাদন ক্ষমতা দ্বিগুন বাড়িয়ে দিয়েছে।

ছবি: সংগৃহীত

ফলে চর এলাকার জমিতে ভূট্টাসহ নানা রকম ফসলের বাম্পার ফলনের সম্ভবনা দেখা-দিয়েছে।
গাইবান্ধা জেলার সদর ,ফুলছড়ি, সুন্দরগঞ্জ, সাদুল্লাপুর,এবং সাঘাটা উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের তিস্তা এবং ব্রহ্মপুত্র নদীর মাঝখানে ছোট-বড় প্রায় ১৬৫টি চর রয়েছে।

এই চর-গুলোর প্রায় ৭০ শতাংশ কৃষি উপযোগী বাকি অংশ প্রতি বছরই ভাঙ্গনের কারণে ফসল উৎপাদনের সক্ষমতা হারিয়ে ফাঁকা পড়ে থাকে।

ফুলছড়ি চর

সরোজমিনে সদর উপজেলার কামারজানি, গিদারী এবং ফুলছড়ি উপজেলার সাতারকান্দি,দেলুয়াবাড়ি, কালুরপাড়া,তালতলা মধ্য খাটিয়ামারি বিভিন্ন গ্রাম ও চর ঘুরে দেখা গেছে, সবুজে ঘেরা প্রাকৃতির অপরুপ দৃশ্য।
চর ঘুরতে ঘুরতে কথা হয় ভুট্টা চাষি সাদিকুর রহমানের(৫০) সঙ্গে তিনি সাপ্তাহিক অবিরামকে জানান, এবছর বন্যার পানি এলাকায় আনাতে কানাতে প্রবেশ করায়,প্রতিটি জমিতে এবং বাড়ির আশে-পাশে ব্যাপক পরিমাণ পলিমাটি জমে কৃষি উৎপাদনে জমির উর্বরতা বৃদ্ধি করেছে।

বাম্পার ফসল

ফলে উঁচু নিচু সকল জমিতে বিভিন্ন ফসল উৎপাদনে উল্লেখযোগ্য সফলতার সম্ভবনা দেখা যাচ্ছে। প্রায় সব গুলো চরের একই চিত্র।

এব্যাপার ভূট্টা চাষি মাহাবুব আলম (৪০) সঙ্গে কথা হলে তিনি জানান, শেষ পর্যন্ত আবহাওয়া যদি ভালো থাকে তাহলে বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা রয়েছে।

এবিষয়ে গাইবান্ধা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক বেলাল উদ্দিনের সঙ্গে কথা হলে তিনি সাপ্তাহিক অবিরামকে জানান, ‘ ভুট্টা চাষের জন্য অত্যন্ত উপযোগী একটি জেলা।

এবং এই জেলায় ভুট্টা একটি ব্যান্ডিং ক্রাপ হিসাবে পরিচিতি লাভ করেছে। এ জেলায় এই রবি মৌসুমে ভুট্টা চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ১৭ হাজার ২০০ হেক্টর জমিতে। ইতি মধ্যেই ১৭ হাজার ৩০ হেক্টর জমিতে রোপণ করা হয়েছে। আশা করা যাচ্ছে এবছর লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি অর্জিত হবে। এবং আবহাওয়া অনূকুলে থাকায় এবছর ভালো ফসল হবে বলে আসাবাদি তিনি।

More News Of This Category
All Rights Reserved © 2023 Amar Songbad
Developed By :: Sky Host BD