1. admin@amarsongbad24.com : admin :
  2. zihadononto15@gmail.com : Zihad Hokkani : Zihad Hokkani
চরাঞ্চল থেকে দিন দিন মহিষ বিলুপ্তির পথে - AMAR SONGBAD 24
রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ০৬:৩৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
পলাশবাড়ীতে খাদ্য গুদামে চাল-গম আত্মসাতের ঘটনায় শ্রমিকদের সংবাদ সম্মেলন পাউবোর সরকারি গাড়ি চাপায় বৃদ্ধা নিহতের ঘটনায় গাইবান্ধা সদর থানায় মামলা, চালক আটক এক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহমুদ মিয়া অপর বিদ্যালয়ে সভাপতি, নানা অনিয়মের অভিযোগ! গাইবান্ধায় প্রকৌশলী কল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে বিশুদ্ধ ঠান্ডা খাবার স্যালাইন পানি বিতরণ জুয়া বসানোর অভিযোগে সাদুল্লাপুরে ইউপি মেম্বার আল-আমিনের বিরুদ্ধে মামলা! (ভিডিও ভাইরাল) সুন্দরগঞ্জের চরাঞ্চলে কর্মোক্ষম মানুষের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী  বিতরণ ভিজিএফের চাল ওজনে কম দেয়ার অভিযোগ সাংবাদিককে লাঞ্চিত করলেন মেয়র সুন্দরগঞ্জ উপজেলা প্রেসক্লাবে আলোচনা দোয়া ও ইফতার  সুন্দরগঞ্জে বারো জুয়াড়িসহ গ্রেফতার-১৩ সুন্দরগঞ্জে জমি নিয়ে সংঘর্ষে নিহত এক, গ্রেফতার দুই

চরাঞ্চল থেকে দিন দিন মহিষ বিলুপ্তির পথে

রিফাতুন্নবী রিফাত গাইবান্ধাঃ
  • প্রকাশের সময়: বৃহস্পতিবার, ৩০ মার্চ, ২০২৩
  • ৮৪
বিলুপ্তির পথে মহিষ
বিলুপ্তির পথে মহিষ

উত্তর জনপদ গাইবান্ধার প্রত্যেক কৃষকের বাড়িতে ছিল মহিষের গাড়ী গ্রাম বাংলার অতিপরিচিত গৃহপালিত প্রাণী মহিষ। এক সময় মহিষ  হাল চাষের প্রধান মাধ্যম ছিল। গরুর থেকে মহিষ বেশী শক্তিশালী হওয়ায় মহিষের গাড়ি যাতাযাতের প্রধান বাহন ছিল। তবে বর্তমানে গাইবান্ধায় থেকে মহিষ প্রায় বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে।

এক সময় গ্রামীণ জনপদের প্রত্যকটি পরিবারের কৃষকেরা মহিষ পালন করতো। এ মহিষ দিয়ে তারা কৃষি জমি চাষাবাদসহ মহিষের গাড়ি চালাতো। মহিষ পালন কমে যাওয়ায় বর্তমানে মহিষের গাড়ি এখন আর চোখে পরে না। আগের মতো হাটে-বাজারেও মহিষ বিক্রি হয় না। পাশাপাশি মহিষ বিলুপ্ত হওয়ায় এর দামও বেড়েছে। মহিষ দেখতে কালো, ধূসর অথবা বাদামী রঙ্গের হয়ে থাকে। মহিষ পালন তুলনামুলকভাবে সহজ ও কম ব্যয়বহুল। এছাড়া মহিষের রোগবালাইও কম হয়। বেশী গরম সহ্য করতে পারেনা বলেই মহিষ সাধারনত পানিময়, ছায়াযুক্ত জায়গায় থাকতে পছন্দ করে।

গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার বাজেফুলছড়ি গ্রামের কৃষক রব্বানী মিয়া বলেন, পুরো গ্রামে বর্তমানে আমদেরই ১০টা মহিষ রয়েছে। ছোট বেলা থেকে দেখে এসেছি বাপ-দাদাদের সঙ্গী ছিল মহিষ। মহিষ দিয়ে অনেক মালবাহি গাড়ি টানা ও হাল চাষ করা হত। মহিষ আমাদের কৃষি পরিবারের জন্য উপকারী একটি প্রাণী। তবে মহিষ আজ আমাদের সংস্কৃতি থেকে হারাতে বসেছে। এক সময় এই গ্রামীণ জনপদে মহিষের বিচরণ থাকলেও চারণ ভুমির অভাবে বর্তমানে হারিয়ে যাচ্ছে এই প্রানীটি।

গাইবান্ধা জেলা প্রাণিসম্পদ অফিসার ডাঃ মো. মাছুদার রহমান সরকার ভোরের আকাশকে জানান, এ জেলায় প্রায় ২৪০০-২৫০০ টি মহিষ রয়েছে। মহিষ সংরক্ষন ও জাত উন্নয়নের জন্য প্রাণীসম্পদ অধিদপ্তরের মাধ্যমে মহিষ উন্নয়ন প্রকল্প (২য় পর্যায়ে) গ্রহন করা হয়েছে। প্রকল্পটির উদ্যেশ্যে হল মহিষের উৎপাদন বৃদ্ধি করা । এর জন্য একজন কৃত্রিম প্রজনন কর্মী নিয়োগ করা হয়েছে।

চর-খাটিয়ামারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, মহিষ গরুর মতোই উপকারী প্রাণী। গরমের সময় এরা পানি ছাড়া থাকতে পারে না। কৃষি হালচাষ গাড়ি টানা, পণ্য পরিবহনের কাজে এই প্রাণীটিকে ব্যাবহার করা হত। শক্তিশালী পশু হিসেবে এদের পরিচিতি সর্বাধিক। এক সময় গ্রামাঞ্চলের কৃষকেরা মহিষ পালন করতো। সময়ের বির্বতনে গৃহস্থের গোয়ালে এখন আর মহিষ দেখা যায় না। কয়েকটি গ্রাম ঘুরেও এখন মহিষ চোখে পরে না। তাই নতুন প্রজন্মের কাছে মহিষ এখন এক বিরল প্রজাতির প্রাণী।

আমার সংবাদ২৪.কম

More News Of This Category
All Rights Reserved © 2023 Amar Songbad
Developed By :: Sky Host BD